• রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English

RMG সেক্টরে লকডাউন,আমাদের জন্য ভাল কিছু বয়ে আনবে না।।

rmgnews24
আপডেট: শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১

আর.এম. জি সেক্টর বন্ধ করার পরিস্থিতি এখনো আসে নাই। কত পারসেন্ট শ্রমিক ভাই বোন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়ছে? যদি কোভিডের প্রভাব আর এম.জি সেক্টরের থাকত তাহলে বন্ধের পক্ষে থাকতাম। এখন মোটামুটি অর্ডারের পিক আওয়ার চলছে,ছোট,বড়, মাঝারী ফ্যাক্টরি গুলোতে ভাল অর্ডার আছে। এই মুহুর্তে ফ্যাক্টরি না চললে ঈদের আগে শিফমেন্ট দিতে না পারলে, চলতি মাসের বেতন,আগামী মাসের বেতন, ঈদের বোনাস অনিশ্চিত হয়ে পড়বে,ক্ষতিটা কিন্তু সাধারণ শ্রমিক ভাই বোনদের হবে তাছাড়া অনেক ফ্যাক্টরি টিকে থাকতে পারবে না।

গত বছরের লকডাউনে যে সব ফ্যাক্টরী লে-অফ হয়েছে অনেকে ফ্যাক্টরি চালু করতে পারে নাই। গত বছরে লকডাউনে যারা চাকরি হারিয়েছে তারা অনেকে চাকরি পাইনি,যারা শহর ছেড়ে গ্রামে গিয়েছে তারা এখনো শহরে আসতে পারে নি। আমরা গত লকডাউনে কি করেছি ? মালিকপক্ষকে আর সরকারকে দোষারোপ করেছি। আর.এম.জি সেক্টর করোনার শুরু থেকে নিয়ম-কানুন মেনে ফ্যাক্টরী চালু রাখছে।
যদি প্রয়োজন হয়,ঈদের বন্ধের সাথে ১৪ দিনের লকডাউন দেন,সেটা মানা যাবে,এমনিতে ঈদে ৮-১০ দিন ফ্যাক্টরিগুলো বন্ধ থাকে। এই লকডাউনে আর.এম.জি সেক্টরকে অন্তর্ভুক্ত করে সংক্রমণ কমবে বলে আমার মনে হয় না।

আমি ব্যাক্তিগতভাবে মনে করি কারখানা বন্ধ করার জন্যে এখনো উপযুক্ত সময় আসে নাই।গত বছরের লকডাউন অভিজ্ঞতা তেমন ভাল না কিন্তু। শিফমেন্ট না হলে আমাদের মালিকদের কি করনীয়? এখনো গতবারের প্রনোদনা পরিশোধ করতে পারে নাই অনেকে।আমিও এই সেক্টরে চাকুরী করে সংসার চালায়।
আমাদের এখন অপ্রত্যাশিত সংকটে দিন পার করতে হবে।

লিখেছেন- রিয়াদ মোঃ আরেফিন
সম্পাদক,আর.এম.জি নিউজ ২৪
এবং এইচ.আর প্রফেশনাল।


এই বিভাগের আরো খবর