• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২৮ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
শিরোনাম

বন্ধু তোমার প্রয়োজন বদলী শ্রমিক, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নয়”(ধারাবাহিক পর্বের-২য় পর্ব)

rmgnews24
আপডেট: শুক্রবার, ১৭ জুলাই, ২০২০

বন্ধু তোমার প্রয়োজন বদলী শ্রমিক, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নয়”

মোহাম্মদ বাবর চৌধুরী
সহযোগীতায়ঃ মোঃ ইমরুল হাসান
মোঃ আফজাল হোসেন রানা

একটি প্রতিষ্ঠিত কোম্পানীর মানব সম্পদ বিভাগে কর্মরত এক সিনিয়র বন্ধুর সাথে চায়ের আসরে পেশাগত আলাপ হচ্ছিল, আলাপের বিষয়বস্তু ছিল চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ। প্রতিষ্ঠানে চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগের মনের খায়েশ আমাদের অনেক দিনের পুরাতন; কিন্তু আমরা কি কখনো চিন্তা করে দেখেছি, কেন আমরা চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ দিতে চাই, আমাদের প্রতিষ্ঠানে কি কাজ সম্পাদনে চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক প্রয়োজন। আলাপের বিষয় বন্তু কর্পোরেট লাইফের সাথে সংশ্লিষ্ট বিধায় আলাপচারিতা কর্পোরেট লাইফ সিরিজ, পর্ব-২ এ প্রকাশ করা হল।

আলাপচারিতাঃ
বন্ধুঃ আমাদের প্রতিষ্ঠানে চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ করতে চাই, এর নিয়োগ প্রক্রিয়া কি?
আমিঃ শ্রম আইনে সাধারনত চুক্তি ভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগের বিধান নাই আর যে বিধান আছে তা দিয়ে তোমাদের চলবে না; কারন একটা বিধান আছে , সেটা হল অবসর গ্রহনকারী শ্রমিককে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিতে পারবা।

বন্ধুঃ এটা ঠিক অবসর গ্রহনকারী শ্রমিক দিয়ে আমার চলবে না।

আমিঃ আমাকে একটু বলবি কেন তোর চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ দিতে হচ্ছে?

বন্ধুঃ আমাদের প্রতিষ্ঠানে নির্ধারিত সংখ্যক স্থায়ী এবং শিক্ষানবিস শ্রমিক আছে, কিন্তু অনেক সময় তাদের অনুপস্থিতিতে প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্যে অর্জনে কাজ সম্পাদনের জন্য অতিরিক্ত কিছু শ্রমিকের প্রয়োজন হয়।

এছাড়া চুক্তি ভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে প্রতিষ্ঠানে স্বল্প খরচে কাজ করানো যায়, শুধুমাত্র চুক্তি অনুসারে কাজের জন্য পরিশোধ করলে হয়, চাকুরীর কোন দীর্ঘমেয়াদী কোন সুযোগ সুবিধা দিতে হয় না; যেমনঃ চাকুরীর পরিসমাপ্তির পূর্বে নোটিশ বা নোটিশের পরিবর্তে পাওনা পরিশোধ / ক্ষতিপূরন/ গ্রাচুইটি/ভবিষ্যৎ তহবিল ইত্যাদি। এধরনের নিয়োগে প্রতিষ্ঠানের আর্থিক ও অনার্থিক দায় কম হয়।

আমিঃ তুই আমাকে বলবি কি ধরনের কাজে তোদের কোম্পানী চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নিয়োগ দিতে চায়?

বন্ধুঃ প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী প্রকৃতির কাজ সম্পাদনের জন্য।

আমিঃ বন্ধু তোমার সমাধান তো শ্রম আইনেই আছে, কিন্তু তুমি সংশ্লিষ্ট শ্রমিকের ধরনের নাম বলতে ভুল করেছ; তোমার প্রয়োজন বদলী শ্রমিক, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক নয়। তোমার বুঝার সুবিধার্থে আমার একটা গবেষনা অংশ তুমি পড়ে দেখতে পার। নিম্নে গবেষনার অংশটি তুলে ধরা হলঃ

গবেষনাঃ কর্মী নিয়োগ ও নিয়োগ পত্র এর সংশ্লিষ্ট আংশিক অংশ।

বদলি শ্রমিকঃ (Substitute Worker)

বদলি শ্রমিকঃ
কোন শ্রমিককে বদলী শ্রমিক বলা হইবে যদি কোন প্রতিষ্ঠানে তাহাকে কোন স্থায়ী শ্রমিক বা শিক্ষানবিসের পদে তাহাদের সাময়িক অনুপস্থিতিকালীন সময়ের জন্য নিযুক্ত করা হয়।
[ব্যাখ্যাঃ প্রতিষ্ঠানের সাংগঠনিক কাঠামোর একটি স্থায়ী পদের বিপরীতে নিয়োগ প্রাপ্ত একজন শ্রমিক ব্যতিত একাধিক শ্রমিকের চাকুরীর দীর্ঘমেয়াদী সুযোগ – সুবিধা (চাকুরির পরিসমাপ্তির পূর্বে নোটিশ প্রদান বা নোটিশের পরিবর্তে মজুরি পরিশোধ, প্রত্যেক বৎসরের জন্য ক্ষতিপূরন, গ্রাচুইটি, ভবিষ্যত তহবিল ইত্যাদি) চলতে পারেনা। স্থায়ী কার্য সম্পাদনে স্থায়ী বা শিক্ষানবিশ পদে নিয়োগ প্রাপ্ত সংশ্লিষ্ট শ্রমিক যদি কোন কারনে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন, তাহলে তার স্থলে সংশ্লিষ্ট কাজ, একজন শ্রমিককে চাকুরীর দীর্ঘ মেয়াদী সুযোগ – সুবিধা প্রদান ব্যতিরেকে, আইন নির্ধারিত সীমিত সুযোগ সুবিধা ও সংশ্লিষ্ট স্থায়ী বা শিক্ষানবিশ শ্রমিকের অনুরুপ পারিশ্রমিকের বিনিময়ে যথা সময়ে সম্পাদনের উদ্দেশ্যে বদলী শ্রমিক তত্ত্বের উৎপত্তি।
বদলি শ্রমিক বলতে সাধারনত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের অনুপস্থিতিকালীন সময়, তার কার্যাবলী সম্পাদনের জন্য তার স্থলে নিযুক্ত শ্রমিককে বদলী শ্রমিক বলা হয়।

সাধারনত যে সব প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী ধরনের কাজ সম্পাদনের জন্য নির্দিষ্ট পরিমান স্থায়ী শ্রমিক নিয়োগ প্রদান করা হয়ে থাকে এবং স্থায়ী শ্রমিক নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে শিক্ষানবিস শ্রমিক নিয়োগ প্রদান করা হয়ে থাকে; সে সব প্রতিষ্ঠানে কোন কারনে উক্ত স্থায়ী বা শিক্ষানবিশ শ্রমিক কাজে অনুপস্থিত থাকলে উক্ত কাজ সম্পাদনের জন্য উক্ত অনুপস্থিত কালীন সময়ে যে শ্রমিক নিয়োগ প্রদান করা হয়ে থাকে তাকে বদলি শ্রমিক বলে।
এখানে উল্লেখ্য যে বদলী শ্রমিক স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের অনুপস্থিতিতে নিয়োগ প্রদান করা হয়; অন্য কোন শ্রেনীর শ্রমিকের অনুপস্থিতিতে বদলি শ্রমিক নিয়োগ প্রযোজ্য নয়।
কর্তৃপক্ষ ইচ্ছা করলে বদলী শ্রমিকের চাকুরী স্থায়ী শ্রমিক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করতে পারে, তবে কর্তৃপক্ষ এধরনের বদলী শ্রমিকের চাকুরী স্থায়ী করতে বাধ্য নয়; যা কর্তৃপক্ষ একক ইচ্ছার উপর নির্ভরশীল।
বর্তমানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে প্রসূতি কল্যান সুবিধা ভোগকালীন বা অন্য কোন কারনে স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের অনুপস্থিতিকালীন সংশ্লিষ্ট শ্রমিকের স্থলে বদলী শ্রমিক নিয়োগ দেয়া যায়। কারখানা বা প্রতিষ্ঠানে অনুমোদিত সাংগঠনিক কাঠামোর বিপরীতে নিয়োগপ্রাপ্ত স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিক কোন কারনে অনুপস্থিতি থাকলে তার স্থলে উক্ত কারখানা বা প্রতিষ্ঠান লক্ষ্য অর্জনে বদলী শ্রমিক নিয়োগ দিতে পারে। বদলি শ্রমিক কখনো স্থায়ী শ্রমিকের মত শ্রম আইনের শর্ত সাপেক্ষে চাকুরী পরিসমাপ্তির সময় ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ হতে কোন দীর্ঘমেয়াদী সুযোগ সুবিধা (চাকুরীর পরিসমাপ্তির পূর্বে নোটিশ বা নোটিশের পরিবর্তে পাওনা পরিশোধ / ক্ষতিপূরন/ গ্রাচুইটি/ভবিষ্যৎ তহবিল ইত্যাদি) দাবী করতে পারে না। কোন বদলী শ্রমিকের নাম প্রতিষ্ঠানে মাস্টার রোলের অন্তর্ভুক্ত থাকলে এবং তিনি উক্ত প্রতিষ্ঠানে অবিচ্ছিন্নভাবে এক বছর চাকুরী সম্পূর্ণ করিলে এবং তাকে লে-অফ করা হইলে, তিনি লে-অফ ক্ষতিপূরণ পাবেন।
বদলী শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সহজে কারখানার ছুটির পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারেন। এছাড়া একজন স্থায়ী শ্রমিক দীর্ঘদিন কাজে অনুনোমোদিত অনুপস্থিত থাকলে অথবা কোন
কারনে অসদাচরনর দায়ে সাময়িক বরখাস্ত থাকলে উক্ত স্থলে ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বদলী শ্রমিক দিয়ে কাজ করাতে পারে এবং এ ধরনের নিয়োগ কারখানা বা প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য অর্জনের গতিকে তরান্বিত করবে। কারখানা বা প্রতিষ্ঠানের মানব সম্পদ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন, মানব সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরন, কারখানার শৃংখলা বিধি বাস্তবায়ন, অপরিকল্পিত ও অতিরিক্ত স্থায়ী শ্রমিক নিয়োগরোধে একটি কার্যকর ব্যবস্থা।

বদলী শ্রমিকের ক্ষেত্রে সার্ভিস বহি প্রযোজ্য নয়; তবে প্রত্যেক বদলী শ্রমিককে একটি বদলী কার্ড দেয়া হবে, যাতে সংশ্লিষ্ট শ্রমিক যে সমস্ত দিন কাজ করেছেন তা উল্লেখ থাকবে এবং তার চাকুরি স্থায়ী প্রাপ্তির ক্ষেত্রে ফেরত দিবেন।

কোন বদলী শ্রমিককে যে পদে নিয়োগ দেয়া হবে তা উক্ত পদে সরকারের বা নূন্যতম মজুরী বোর্ডের কোন মজুরি নির্দেশনা না থাকলে সংশ্লিষ্ট শ্রমিকের মজুরি প্রতিষ্ঠানের নীতি অনুযায়ী নির্ধারণ করা যাবে।

বদলী শ্রমিক চাকুরীতে নিরবিচ্ছিন্নভাবে এক বছর অতিবাহিত করলে উৎসব বোনাসের জন্য যোগ্য হবেন এবং শ্রম আইনের শর্ত অনুসারে বোনাস প্রাপ্য হবেন।

অন্যান্য শর্তসমূহ যেমনঃ কর্মঘন্টা, নিরাপত্তা, মার্তৃত্বকালীন সুবিধা, কল্যাণমূলক ব্যবস্থা, মজুরী, দূর্ঘটনা কারনে ক্ষতিপূরন ইত্যাদি আইন দ্বারা নির্ধারিত হবে। বদলী শ্রমিকের কোন শিক্ষানবিস কাল থাকে না।

বদলী শ্রমিক নিয়োগ কৌশলঃ সাধারনত যে সব কারখানা বা প্রতিষ্ঠানে কোন পদের বিপরীতে বদলী শ্রমিক নিয়োগ প্রদান করতে ইচ্ছুক সে সব কারখানা বা প্রতিষ্ঠান ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট পদের বিপরীতে যে সকল শ্রমিক বদলী শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে ইচ্ছুক তাদের একটি তালিকা সংরক্ষণ করে, প্রত্যেককে একটি বদলী কার্ড ইস্যু করেন। উক্ত তালিকা হতে সময় সময় প্রয়োজনীয় বদলী শ্রমিক নিয়োগ প্রদান করেন।

বদলী শ্রমিক যে স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের স্থলে নিয়োগ দেয়া হবে, সে শ্রমিকের যে পদবী এবং মজুরী কাঠামো; নিয়োগপ্রাপ্ত সংশ্লিষ্ট বদলী শ্রমিকের পদবী এবং মজুরী কাঠামো একইভাবে নির্ধারিত হবে। এধরনের শ্রমিকদের চাকুরী পরিসমাপ্তির সময় কর্তৃপক্ষ দীর্ঘমেয়াদী কোন সুযোগ-সুবিধা দিতে হয় না বিধায়; বদলী শ্রমিক পদে দক্ষ শ্রমিক পেতে এদের মজুরী সংশ্লিষ্ট স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিক হতে একটু বেশী দিতে হয়।

ব্যতিক্রমঃ স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের অনুপস্থিতিতে উক্ত শ্রমিকের কার্য সম্পাদনের জন্য বদলী শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয়। যদি ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ একজন বদলী শ্রমিক দিয়ে অনুপস্থিত স্থায়ী বা শিক্ষানবিস শ্রমিকের স্থলে কাজ না করিয়ে, সরাসরি কোন স্থায়ী কাজে নিয়োগ প্রদান করেন এবং একাদিক্রমে বা তিন বৎসরের মধ্যে বিরতি না দিয়ে ৯০ দিনের বেশী সময় কাজ করান তবে যদি সংশ্লিষ্ট বদলী শ্রমিকটি স্থায়ী শ্রমিক বলে আইনত দাবী করে উক্ত দাবী আদালতের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে….. সমাপ্ত

আর.এম.জি নিউজ ২৪


এই বিভাগের আরো খবর